মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
উপজেলা পরিসংখ্যান অফিস

প্রতিটি উপজেলায় একটি করে উপজেলা পরিসংখ্যান অফিস রয়েছে। বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর মোট ২৩ টি আঞ্চলিক পরিসংখ্যান অফিস রয়েছে। উপজেলা পরিসংখ্যান অফিস পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন ও আঞ্চলিক পরিসংখ্যান কর্মকর্তার অধীন পরিচালিত। এই অফিসে মোট জনবল ৪ জন, ১ জন উপজেলা পরিসংখ্যান কর্মকর্তা, ২ জন জুনিয়র পরিসংখ্যান সহকারী, ১ জন চেইনম্যান রয়েছে।

এছাড়া সিটি কর্পোরেশন এলাকায় এক বা একাধিক পরিসংখ্যান অফিস আছে, যা “থানা পরিসংখ্যান অফিস”  নামে পরিচিত।

  • কী সেবা কীভাবে পাবেন
  • প্রদেয় সেবাসমুহের তালিকা
  • সিটিজেন চার্টার
  • সাধারণ তথ্য
  • সাংগঠনিক কাঠামো
  • কর্মকর্তাবৃন্দ
  • তথ্য প্রদানকারী কর্মকর্তা
  • কর্মচারীবৃন্দ
  • বিজ্ঞপ্তি
  • ডাউনলোড
  • আইন ও সার্কুলার
  • ফটোগ্যালারি
  • প্রকল্পসমূহ
  • যোগাযোগ

রমিক

নং

           সেবা

সেবা প্রদান/প্রাপ্তির ক্ষেত্রে অসুবিধাসমূহ

     নাগরিক পর্যায়

      সরকারী পর্যায়

০১

জনসংখ্যা বিষয়ক পরিসংখ্যান প্রদান(জেলা, উপজেলা,ইউনিয়ন,মৌজা ও গ্রাম ভিত্তিক)

বেসরকারী সংস্থা,উন্নয়ন সহযোগী,দাতাসংস্থা, নীতিনির্ধারক,

পরিকল্পনাবিদ,শিক্ষক-শিক্ষাথী দশ বছর পর পর শুমারি হওয়ায় বছর ভিত্তিক তথ্য দেওয়া সম্ভব হয়না। তবে প্রয়োজন অনুসারে জন্মহারকে প্রজেক্টড করে জনসংখ্যা বিষয়ক পরিসংখ্যান প্রদান করা হয়।

গ্রাহক/সেবাগ্রহণকারীকে প্রকাশিত তথ্য সরবরাহ করা হয়ে থাকে। দশ বছর পর পর আদমশুমারি ও গৃহগণনার মাধ্যমে তথ্য সংগ্রহ করা হয় এবং তথ্য প্রকাশ করা হয়।ফলে তথ্য ব্যবহারকারী প্রতিষ্ঠানের ইছানুসারে তথ্য প্রদান করা সম্ভব হয় না।

০২

ভোক্তা দৈনন্দিন জীবনযাত্রার ব্যবহৃত খাদ্য ও খাদ্য বহির্ভূত পণ্য অন্তর্ভুক্ত করে মাসভিত্তিক ভোক্তা মূল্য সূচক(CPI)নিরুপণ

_

জেলা পরিসংখ্যান অফিস না থাকায় সদর উপজেলা হতে প্রতি মাসে ভোগ্য পণ্যের মূল্য মজুরী তথ্য সংগ্রহ করা হয়। সংগ্রহকৃত তথ্য সদর দপ্তরে প্রেরণ এবং সদর দপ্তরে তথ্য প্রক্রিয়া করে তথ্য প্রকাশ করতে প্রয়োজনের তুলনায় কিছুটা বেশি সময় লাগে। ফলে তথ্য ব্যবহারকারীর উপযোগিতা কমে যায়।

০৩

আদমশুমারি ও গৃহগণনা

        -

       -

০৪

কৃষি শুমারি

        -

       -

০৫

অর্থনৈতিক শুমারি

        -

       -

০৬

ইউনিয়ন ওয়ারী ক্লাষ্টার হতে বিভিন্ন ফসলের উৎপাদন ও ফসলাধীন জমির পরিমান ও ভূমির ব্যবহার সংক্রান্ত পরিসংখ্যান প্রস্তুত

        -

জনবল কম এবং লজিস্টিক সাপোর্ট না থাকায় সঠিক সময় তথ্য সংগ্রহ করা সম্ভব হয়না।

০৭

প্রধান-অপ্রধান ফসলের প্রাক্কলন করা

        -

জনবল কম এবং লজিস্টিক সাপোর্ট না থাকায় সঠিক সময় তথ্য সংগ্রহ করা সম্ভব হয়না।

০৮

প্রধান ফসলের পূর্বাভাস জরিপ

        -

জনবল কম এবং লজিস্টিক সাপোট না থাকায় সঠিক সময় তথ্য সংগ্রহ করা সম্ভব হয়না।

০৯

ক্লাষ্টার হালনাগাদকরন ও সম্প্রসারণ এবং উৎপাদন খরচ জরিপ

        -

জনবল কম এবং লজিস্টিক সাপোট না থাকায় সঠিক সময় তথ্য সংগ্রহ করা সম্ভব হয়না।

১০

বিভিন্ন ফসলের ক্ষয়-ক্ষতি নিরুপন

        -

          -

১১

প্রতি মাসে কৃষি মূল্য মজুরী তথ্যসংগ্রহকরণ

        -

          -

১২

মাছ উৎপাদন জরিপ

        -

          -

১৩

গবাদি পশু ও হাস-মুরগী জরিপ

        -

          -

১৪

বন জরিপ

        -

          -  

১৫

কুটির শিল্প জরিপ

        -

          -

১৬

সেম্পল ভাইটাল রেজিস্টেশন সিস্টেম

        -

সেম্পল সাইজ কম হওয়ায় উপজেলা পর্যায়ে তথ্য উপস্থাপন করা সম্ভব হয় না।

১৭

হাউজ হোল্ড ইনকাম এন্ড এক্সপেন্ডিচার সার্ভে

        -

প্রতি ৫ বছর পর পর অনুষ্ঠিত হয় বলে তথ্য ব্যবহারকারীকে বছরভিত্তিক খানার আয়-ব্যয় সম্পকিত তথ্য দেওয়া সম্ভব হয় না।

১৮

মাল্টিপল ইন্ডিকেটর ক্লাস্টার সার্ভে

        -

প্রতি ৩ বছর পর পর অনুষ্ঠিত হয় বলে তথ্য ব্যবহারকারীকে বছরভিত্তিক মা ও শিশু সম্পর্কিত তথ্য দেওয়া সম্ভব হয় না।

১৯

বিভিন্ন শুমারি ও সার্ভে কাজে নিয়োগকৃত গণনাকারী ও সুপারভাইজারদের প্রশিক্ষণ প্রদান

        -

          -

২০

বিভিন্ন সার্ভে করা হয়

        -

অনিয়মিতভাবে

২১

স্থানীয় সরকারের আয় ব্যয়(বাজেট) সংগ্রহ

        -

জনবল কম

১. সরকারের নির্দেশ অনুযায়ী আদমশুমারী, কৃষি শুমারী, অর্থনৈতিক শুমারীসহ বিভিন্ন জরিপ পরিচালনা করা।

২. খানার আয়-ব্যয় জরিপের মাধ্যমে পরিবারসমুহের অর্থনৈতিক অবস্থার মূল্যায়ন।

৩. মহিলাদের অবস্থান সম্পর্কিত জরিপ পরিচালনা করা।

৪. MICS জরিপের মাধ্যম শিশু মৃত্যু হার, বিবাহ বিশুদ্ধ পানি ও পয়ঃনিস্কাষণ, শিক্ষা স্বাস্থ সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহ।

 ৫. উপজেলার আয়তন ও শষ্য উৎপাদন জরিপ।

৬. বাজার দর তথ্য সংগ্রহ করা।

৭. MSVS এর আওতায় ১০টি জরিপ পরিচালনা করা হয়।

৮. ধান, গম, আলুসহ ৬টি প্রধান ফসলসহ ১১৪টি ফসলের কৃষি তথ্য সংগ্রহ(২৫টি দাগগুচ্ছ)

৯. ধান, গম, আলুসহ ৬টি প্রধান ফসলসহ ফসল কর্তনের ফলাফলের মাধ্যমে উপজেলার আয়তন ও উৎপাদন জরিপ।

১০. উপজেলা, পৌরসভা, জেলা পরিষদ ও ইউনিয়ন পরিষদের আয় ব্যয়ের বাজেট সংগ্রহ করা।

১১. আউশ, আমন, বোরো, পাট ও ভুট্টা ফসলের পূর্বাষাস তথ্য সংগ্রহ করা হয়।

প্রতিটি উপজেলায় একটি করে উপজেলা পরিসংখ্যান অফিস রয়েছে। বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর মোট ২৩ টি আঞ্চলিক পরিসংখ্যান অফিস রয়েছে। উপজেলা পরিসংখ্যান অফিস পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন ও আঞ্চলিক পরিসংখ্যান কর্মকর্তার অধীন পরিচালিত। এই অফিসে মোট জনবল ৪ জন, ১ জন উপজেলা পরিসংখ্যান কর্মকর্তা, ২ জন জুনিয়র পরিসংখ্যান সহকারী, ১ জন চেইনম্যান রয়েছে।

এছাড়া সিটি কর্পোরেশন এলাকায় এক বা একাধিক পরিসংখ্যান অফিস আছে, যা “থানা পরিসংখ্যান অফিস”  নামে পরিচিত

ছবি নাম মোবাইল
নুর মোহাম্মদ ০১৭১৮-০৪২০৬৮

ছবি নাম মোবাইল
নুর মোহাম্মদ ০১৭১৮-০৪২০৬৮

হাজীগঞ্জ উপজেলায় তেমন কোন উল্লেখ যোগ্য প্রকল্প সমুহ চালু নেই ।

বাংলাদেশের  যে কোন প্রান্ত হতে কুমিল্লা বিশ্ব রোড হয়ে চাঁদপুর মহাসড়ক দিয়ে হাজীগঞ্জ উপজেলার অবস্থান । বাস যোগে হাজীগঞ্জ অবস্থান করে সিএনজি অথবা অটোরিক্সা হয়ে হাজীগঞ্জ উপজেলায় আসা যায়। নৌপথ ঢাকা থেকে চাঁদপুর। চাঁদপুর থেকে সিএনজি অথবা বাস যোগে হাজীগঞ্জ উপজেলা  পরিসংখ্যান অফিসে আসা যায়।

জনাব  নুরু মোহাম্মদ

উপজেলা পরিসংখ্যান কর্মকর্তা

মোবাইল:০১৭১৮-০৪২০৬৮

ই-মেইল:usohajigonj@gmail.com